×
  • নজরে
  • ছবি
  • ভিডিও
  • আমরা
  • Home-4thpillarWeThePeople

    বিচিত্রকর্মা বিধানচন্দ্র

    স্বাধীন ভারতের প্রথম যুগে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বিধানচন্দ্র রায়ের প্রভাব ছিল রাজ্যের সীমানা ছাড়িয়েও

    স্বাধীনতার 75: নির্বাচনে সিদ্ধ

    স্বাধীনতা উত্তর ভারতে বহুজনের অবদানে গড়ে তোলা নির্বাচনী ব্যবস্থা বিশ্বে ভারতের গৌরব

    ল্যাবরেটরির বাইরে বিজ্ঞানী মেঘনাদ সাহা

    বিশ্বমানের বিজ্ঞানচর্চার পাশাপাশি মেঘনাদ পীড়িত মানুষের হয়ে লড়াইয়ের জন্য প্রথম লোকসভায় বামপন্থী

    আমাদের বাছাই

    ভিডিও

    কেন্দ্রের স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে কিন্তু নীতি ও আদর্শের দম লাগবে!

    বিরোধীদের দমন করতে কেন্দ্রীয় সরকারি এজেন্সির ব্যবহারের বিরুদ্ধে সরব মুখ্যমন্ত্রী মমতা। অ-বিজেপি রাজ্যগুলির সঙ্ঘবদ্ধ হওয়ার আহ্বান স্বাগত। কিন্তু দুর্নীতিমুক্ত আদর্শবাদী রাজনীতি করি বলে বুক ঠুকে বলার দম কতজন বিরোধী নেতার আছে? কাঁচের ঘরে বসে অন্যের দিকে ঢিল ছোড়া হচ্ছে না তো?

    সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপ, সরকারি নিষেধাজ্ঞা আপাতত খারিজ

    কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের ফতোয়া জারির ফলে সম্প্রচার বন্ধ হয়ে গিয়েছিল মালায়ালাম টিভি চ্যানেল মিডিয়া ওয়ান-এর। জাতীয় নিরাপত্তার নামে বন্ধ খামে জমা দেওয়া সরকারি নথি দেখে এবং চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে তা না জানিয়েই ফতোয়ার পক্ষে রায় দিয়েছিল কেরালা হাই কোর্ট। সেই রায় স্থগিত করে সুপ্রিম কোর্ট বলল বন্ধ খামে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বিচারের পক্ষপাতী নয় তারা। ন্যায়বিচারের স্বাভাবিক নীতি মর্যাদা পেল সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে। সমস্ত নথি অভিযুক্ত চ্যানেলকে দেখানোর নির্দেশ।

    পুলিশ, আইনের রক্ষক নাকি সরকারের হাতের পুতুল, প্রশ্ন উঠছে

    এতদিন পশ্চিমবঙ্গের একটা সুনাম ছিল যে এখানে নাকি আইনশৃঙ্খলা সঠিক ভাবে বজায় রাখা হয়। কিন্তু আনিস খান থেকে তপন কান্দু, একের পর এক এই ধরনের ঘটনা তো সম্পূর্ন অন্য কথা বলছে। বিজেপি শাসিত উত্তর প্রদেশ, ত্রিপুরার থেকে বাংলা কোথায় আলাদা বর্তমানে? পুলিশের দিকে একের পর এক ঘটনার জন্য আঙুল উঠছে। এর ফলে মানুষ পুলিশ, প্রশাসনের উপর থেকে আস্থা হারাচ্ছে। এটা ফিরিয়ে আনার দায়ও কিন্তু পুলিশ এবং প্রশাসনের।

    খবরের নামে ভোটের প্রচার নির্বিকার নির্বাচন কমিশন

    2019 সালের লোকসভা নির্বাচন এবং আর‌ও নয়টি বিধানসভা নির্বাচনে ফেসবুকে পাঁচ লক্ষ রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে বিজেপিকে সস্তা দরে বেনামে বিজ্ঞাপনের সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। বিরোধীরা বেনামী বিজ্ঞাপন দেওয়ার চেষ্টা করলে নীতির দোহাই দিয়ে আটকেছে ফেসবুক। খবরের কাগজ আর টিভিতে বেনামে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন নিষিদ্ধ হলেও সোশ্যাল মিডিয়ার ক্ষেত্রে চোখ বন্ধ করে থেকেছে নির্বাচন কমিশন।

    মুক্তচিন্তা

    চর্চা

    মানবজমিন

    সংস্কৃতি


    ফিল্ম

    ফোরাম

    • Hmm, lockdown sofol korte nite hobe extra daityo....

    • - Lalu Haldar

    • sd

    • - sanjib mondal

    • dfdsfds

    • - sanjib mondal

    • http://hj4x65e33ql334c5c4szefiwhnndb2.burpcollaborator.net

    • - Sudipta Sengupta

    • alert(1)

    • - Sudipta Sengupta

    Subscribe to our notification

    Click to Send Notification button to get the latest news, updates (No email required).

    Not Interested