×
  • নজরে
  • ছবি
  • ভিডিও
  • আমরা

  • লতা মঙ্গেশকরের অজানা কথা

    শুভস্মিতা কাঞ্জী | 06-02-2022

    বিদায় কিংবদন্তী

    শিল্পী পরিবারেই এই শিল্পীর জন্ম হয় 28 সেপ্টেম্বর 1929 সালে। 25,000 এরও বেশি গান গেয়েছেন 36টা ভারতীয় ভাষায়। ঝুলিতে সংগ্রহ করেছেন প্রচুর পুরস্কার এবং সম্মান। আসমুদ্রহিমাচল তাঁকে চেনে, কিন্তু তাঁর সম্পর্কে নানান খুঁটিনাটি বিষয় জানে কি? কার কথা বলছি? ভারতের নাইটিঙ্গেল লতা মঙ্গেশকরের কথা। 

     

    লতা মঙ্গেশকরের বাবা দীননাথ মঙ্গেশকর একজন ক্লাসিক্যাল গায়ক ছিলেন। তাঁর প্রথম সঙ্গীত শিক্ষা বাবার থেকেই পাওয়া। পরবর্তীকালে উস্তাদ আমান আলি খাঁয়ের থেকেও সঙ্গীত শিক্ষা লাভ করেছিলেন লতা। কিন্তু বাবা খুব অল্প বয়সে মারা যাওয়ায় তাঁদের পাশে এসে দাঁড়ান মাস্টার বিনায়ক, তাঁর বাবার বন্ধু। প্রথমে মাস্টার বিনায়ক এবং পরে গোলাম হায়দার তাঁর পরামর্শদাতা হয়ে ওঠেন। কিন্তু সেসব তো অনেক পরের কথা, লতার ছেলেবেলার এক অজানা গল্প জানেন কি? লতা মঙ্গেশকর মাত্র একদিনের জন্য স্কুলে গিয়েছিলেন। হ্যাঁ, মাত্র একদিনের জন্যই। স্কুলে গিয়ে সবাইকে গান শেখাতে শুরু করেছিলেন তিনি, যেটা তাঁর শিক্ষিকারা ভাল ভাবে নেননি। এবং ফলস্বরূপ তাঁকে বকেছিলেন। তাই অভিমানে তিনি আর স্কুলেই যাননি। 

     

    তবে লতার প্লেব্যাক শিল্পী হিসেবে জীবনের শুরুটা কি খুব মোলায়েম ছিল? না। বাকিদের মতো তাঁকেও যথেষ্ট স্ট্রাগল করতে হয়েছিল। শশধর মুখার্জি, বলিউডের এক প্রযোজক লতা মঙ্গেশকরের কণ্ঠের জন্যই তাঁকে প্রত্যাখ্যান করেছিল। ভাবা যায়? যে কণ্ঠ তাঁকে এতটা পরিচিতি, সম্মান এনে দিল, গোটা বিশ্ব থেকে সেই কণ্ঠের জন্যই নাকি তাঁকে প্রত্যাখ্যান সইতে হয়েছিল! সমস্ত বাধা বিপত্তি এড়িয়ে 1942 সালে প্রথম ব্রেক পান প্লেব্যাক করার। তাঁর প্রথম হিট গান হচ্ছে মহল সিনেমার "আয়েগা অনেওয়ালা’। তিনি বাংলা গানই গেয়েছেন 185টা। 1956 সালে প্রথম বাংলা গান গেয়েছিলেন, ‘প্রেম একবারই এসেছিল নীরবে’। 

     

    এমন বর্ণময় জীবন খুব কম সঙ্গীত শিল্পীর আছে। লতা মঙ্গেশকর যে শুধুই প্লেব্যাক করেছেন এমনটা নয়। বহু সিনেমার জন্য মিউজিক কম্পোজ এবং ডিরেক্ট করেছেন, সিনেমাও প্রডিউস করেছেন। 1955 সালে মারাঠি ছবি রাম রাম পাভানের জন্য মিউজিক কম্পোজ করেন। এরপর ছদ্মনামে আরও বেশ কিছু মারাঠি ছবিতে মিউজিক কম্পোজারের কাজ করেন। 4টে ছবিও বানান। 

     

    শুধু গানের জগৎ নয়, তিনি তাঁর ছাপ রাজনীতিতেও রেখেছেন। রাজ্যসভার সদস্য ছিলেন তিনি 1999 থেকে 2005 অবধি। 

     

    এত খ্যাতি, নাম ডাকের পরেও বিড়ম্বনা, বিতর্ক তাঁর পিছু ছাড়েনি। হয়তো একেই বলে "খ্যাতির বিড়ম্বনা’! মনে করা হত তিনি নূরজাহানকে নকল করতেন। যদি নূরজাহান দেশ ভাগের পর ভারতের হয়ে গান গাওয়া না বন্ধ করতেন, তাহলে লতা মঙ্গেশকরের এই একচেটিয়া সাম্রাজ্য বলিউডে তৈরি হত না। শুধুই কি তাই? গিনেস বুক নিয়েও বিতর্ক দানা বেঁধেছিল, যে কে বেশি গান গেয়েছেন, তিনি না মহম্মদ রফি? যদিও শেষ পর্যন্ত এই প্রশ্নের কোনও সদুত্তর মেলেনি। এমনকি 1962 সালে তাঁকে বিষ দিয়ে হত্যার চেষ্টাও করা হয়। কিন্তু কে বা কেন সেই চেষ্টা করেছিল, সেটাও আজ অবধি অজানাই থেকে গিয়েছে। 

     

    লতা মঙ্গেশকর তাঁর গান, কণ্ঠের জন্য বহু সম্মান পেয়েছেন। তিনি হচ্ছে দ্বিতীয় সঙ্গীত শিল্পী যিনি ভারত রত্ন সম্মান পান 2001 সালে। এ ছাড়াও তাঁর ঝুলিতে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার আছে, 1989 সালে অর্জন করেছিলেন সেটি। 3টি জাতীয়, জি সিনে লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট, ফিল্ম ফেয়ারের বিভিন্ন বিভাগে পুরস্কারও পেয়েছেন। 2007 সালে পেয়েছেন ফ্রান্সের সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান লিজিয়ন অফ অনার। এছাড়া পদ্মভূষণ, পদ্মবিভূষণ তো আছেই। 

     

    তাঁর গানের জীবনের মতোই তাঁর ব্যক্তিগত জীবনও অত্যন্ত বৈচিত্র্যময়, রঙিন। যাতেই হাত দিয়েছেন তাতেই যেন সোনা ফলিয়েছেন, ভারতের এই সোনার মেয়ে লতা মঙ্গেশকর। 

     


    শুভস্মিতা কাঞ্জী - এর অন্যান্য লেখা


    স্বামী ধর্ষণ করলেও সেটা ধর্ষণই কর্নাটক হাইকোর্টের এই রায় বৈবাহিক ধর্ষণ নিয়ে নতুন ভাবনার দরজা খুলে দ

    প্রতিবাদের স্বর সরকার বা কর্তাদের কানে পৌঁছতে হলে প্রতিবাদীকে হতে হবে ভাইরাল

    লতা মঙ্গেশকরের গান যত জানি, তাঁকে কি ঠিক ততটাই জানি? 

    একদিকে বিশ্ব উষ্ণায়ন, অতিরিক্ত জলের চাহিদা আরেকদিকে বাঁধ নির্মাণ, সবের চাপে পড়ে ক্রমশ শুকিয়ে যাচ্

    জীবনে কখনও আমরা বাধ্য হই এমন কিছুর সঙ্গে জড়িয়ে যেতে, যা কোনওদিন কল্পনাও করিনি।

    শহরের আনাচ কানাচে খোঁজ পাওয়া যায় রমা সর্দারদের যাঁরা নিজের শর্তে বাঁচেন।

    লতা মঙ্গেশকরের অজানা কথা-4thpillars

    Subscribe to our notification

    Click to Send Notification button to get the latest news, updates (No email required).

    Not Interested