×
  • নজরে
  • ছবি
  • ভিডিও
  • আমরা

  • প্রতিবাদের অধিকার সংবিধানে স্বীকৃত

    4thPillar WeThePeople | 19-06-2021

    দীপ্ত সেনগুপ্তর সঙ্গে আলোচনায় আইনজীবী অরুণাভ ঘোষ এবং সাংবাদিক রজত রায় ও গৌতম লাহিড়ী।

    একের পর এক অতি তুচ্ছ সাধারণ ঘটনায় সন্ত্রাসবাদ দমন এবং দেশদ্রোহ বিরোধী আইনের প্রয়োগ করে চলেছে সরকার। পিঁজরা তোড় আন্দোলনের তিনজনের জামিন দেখিয়ে দিল সরকারের স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে নাগরিকের অধিকার সংবিধানে স্বীকৃত। লড়াই কি এবার আর‌ও জোরদার হবে? এই নিয়েই গত 17 জুন (বৃহস্পতিবার) 4thPillarWeThePeople.com একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল। এই আলোচনায় সুদীপ্ত সেনগুপ্তর সঙ্গে আইনজীবী অরুণাভ ঘোষ এবং সাংবাদিক রজত রায় ও গৌতম লাহিড়ী উপস্থিত ছিলেন।

     

     

    1) UAPA আইন বিজেপি সরকার বিরোধী কণ্ঠ রোধ করতে যেখানে পারছে সেখানে ব্যবহার করছে। এর ফলে কিন্তু এই সরকার নিজের কবর নিজেই খুঁড়ছে।

     

    2) ক'দিন আগে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ভারতে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা রয়েছে এবং শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের অধিকার ভারত সরকার দিয়ে থাকে। কিন্তু সেটা তাঁদের কার্যকলাপে মনে হচ্ছে না।

     

    3) সরকারের সব থেকে বড় হাতিয়ার তার আইন এবং আইন রক্ষকরা। তাই এরা সবসময় চান এমন একটা আইন থাকুক, যেখানে অপরাধ প্রমাণ করার আগেই অভিযুক্ত অপরাধ করুক বা না করুক সহজেই তাকে বন্দি বানিয়ে রাখা যায়। UAPA তেমনই একটি আইন। তাই তাকে কালাকানুন বলা হয়।

     

    4) বর্তমানে বিচারব্যবস্থার মধ্যে কিছু পসিটিভিটি দেখা যাচ্ছে, যা আশার আলো জাগাচ্ছে আবার অনেকের মনে। কিন্তু এখনও দেশে এমন অনেক মামলা ঝুলে আছে যার সমাধান আজও হয়নি, এবং সমাধান হওয়ার কোনও লক্ষণও দেখা যাচ্ছে না। তবে আশার কথা এই যে, আগামীদিনে মানুষের মধ্যে থেকে আন্দোলনের মাধ্যমে যদি এই নিয়ে আরও দাবি ওঠে, এবং সেগুলো বাড়তে থাকে, তাহলে ক্লাস অ্যাক্ট হবে। প্রতিবাদী আইনজীবীরা মাঠে নামবেন এবং লড়াইগুলো লড়বেন। এভাবেই জিনিসগুলো ছড়াবে এবং অসংখ্য যে অমীমাংসিত মামলা আছে, যেখানে মানুষদের, সমাজকর্মীদের বিনা কারণে আটকে রাখা হয়েছে, সেই মামলাগুলোর সমাধান হবে এবং তাঁরা বিচার পাবেন।

     

    5) পাবলিক প্রসিকিউটররা যা বলেন বিচারে তাই প্রতিফলিত হয়। আমাদের দেশে বিচার করে জামিন দেওয়া হয় না। অর্থের বিনিময়ে তা বিক্রি হয়।


    4thPillar WeThePeople - এর অন্যান্য লেখা


    ট্রেন চলছে চলুক, আনুষ্ঠানিকভাবে দায় নেব না, এটাই কি রাজ্য সরকারের গা বাঁচানো অবস্থান?

    সুদীপ্ত সেনগুপ্তর সঙ্গে আলোচনায় রঞ্জন রায়, অনিকেত চট্টোপাধ্যায় ও শুভনীল চৌধুরী।

    সন্দেহ হচ্ছে, পেগাসাস নিয়ে মোদী সরকারের অবস্থান হল, কিছুতেই সত্যি কথাটা বলা যাবে না!

    ব্রিটিশ আমলে মহাত্মা গান্ধীকে যে আইনে বন্দি করা হত, আজও কি তার প্রয়োজন আছে?

    রাজ্যের স্কুলগুলিতে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নেই, উপরন্তু সেই নিয়োগ নিয়ে মারাত্মক দুর্নীতির অভিযোগ।

    প্রতিবাদের অধিকার সংবিধানে স্বীকৃত-4thpillars

    Subscribe to our notification

    Click to Send Notification button to get the latest news, updates (No email required).

    Not Interested