×
  • নজরে
  • ছবি
  • ভিডিও
  • আমরা

  • মহামারীর আশঙ্কা সঙ্গী করেই মহানগরের পুরভোট

    শিবপ্রিয় দাশগুপ্ত | 30-11-2021

    প্রতীকী ছবি

    করোনা মহামারীকে সঙ্গে নিয়েই কলকাতা মহানগরের পুরভোট শুরু হতে চলেছে। এ দিকে মহামারী আবারও তার নতুন এবং ভয়াল রূপ নিয়ে সামনে এসে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে চিকিৎসকেরা বলছেন সতর্ক থাকতে। তবে এই কথাটা কতটা মানা হবে সেটাই লাখ টাকার প্রশ্ন! কেন না, করোনার প্রবল দাপটের মধ্যে সাম্প্রতিক অতীতে রাজ্যে আট দফার বিধানসভা ভোটপর্ব সম্পন্ন হতে ও তার জন্য করোনা বিধি যথেচ্ছ লঙ্ঘিত হতে দেখেছি। আবারও কলকাতা পুরসভার নির্বাচনকে ঘিরে সেই পরিস্থিতি যে তৈরি হবে না তা কে বলতে পারে?

     

    শহর কলকাতায় এখন লকডাউন নেই। স্কুল, কলেজ, অফিস, আদালত স্বাভাবিক ছন্দে ফিরেছে। 2 নভেম্বর থেকে মেট্রো রেলের কামরায় ভিড় বেড়েছে। কারণ টোকেন ব্যবস্থা আবার চালু হয়েছে। এর উপর আবার আগামী 19 ডিসেম্বর কলকাতা পুরসভার নির্বাচন ঘোষণা হয়েছে। সেই নির্বাচনকে ঘিরে প্রচার, মিটিং, মিছিল সবই চলবে। তবে চিন্তা একটাই, করোনা বিধি যাতে মানা হয় সেই বিষয়টি রাজ্য নির্বাচন কমিশন যথাযথ ভাবে নজরদারি করবে তো? না কি করোনা বিধি মেনে ভোট করার কথা ঘোষণা করেই জাতীয় নির্বাচন কমিশন যে ভাবে বিধানসভা নির্বাচনের সময় দায় সেরেছিল সেই ভাবে দায় সারবে? উঠছে এই প্রশ্নও। সাম্প্রতিক অতীতে দেখা গিয়েছে, 2021 -এর বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলমত নির্বিশেষে নেতা-মন্ত্রীরা কতটা বেলাগাম হয়ে করোনা বিধি লঙ্ঘন করেছেন। তার ফলে বিধানসভা নির্বাচনের পর করোনার সংক্রমণ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল। তাই কলকাতা পুরসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হতেই সিঁদুরে মেঘ দেখছেন চিকিৎসকেরা। পাবেন না-ই বা কেন? 25 নভেম্বর রাজ্যে 258 জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে 200 জনই আক্রান্ত হয়েছেন কলকাতায়।

     

    আরও পড়ুন:ব্রহ্মপুত্র চরের উপাখ্যান: হত্যা, উচ্ছেদ, ভিটে হারানোর দিনপঞ্জি

     

    এ দিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ রাজ্যগুলিকে করোনা সংক্রমণের নতুন রূপ নিয়ে সতর্ক করেছেন। চিঠি লিখে রাজ্যগুলিকে জানানো হয়েছে, করোনা নতুন ভাবে জিনের চরিত্র বদল করে বিরল রূপ নিচ্ছে, যার ফলে ঝুঁকিপূর্ণ বিদেশি পর্যটকদের উপর নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

     

    সমস্যাটা এখানেই। করোনা তার চরিত্র বদল করে নিজেকে যে ভাবে শক্তিশালী করে তুলছে সেই প্রজাতিকে চিহ্নিত করার মতো ব্যবস্থা বা পরিকাঠামো আমাদের দেশে নেই বলে জানিয়েছেন ভাইরোলজিস্ট শতদল দাস। তিনি দাবি করেন, ""আমাদের দেশে এখনও পর্যন্ত মূলত ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টই করোনার সংক্রমণ ঘটাচ্ছে। আরটিপিসিআর পদ্ধতিতে সেটা আমরা চিহ্নিত করতে পারছি। তাই করোনার এই নতুন রূপ বার বার তার জিনের বিন্যাস বদলালে বিদেশি পর্যটকদের উপর নজর রাখা জরুরি।” শতদল দাসের মতে, প্রয়োজনে বিদেশি পর্যটকদের কারও শরীরে কোনও উপসর্গ দেখা দিলে তাঁকে আলাদা জায়গায় পর্যবেক্ষণে রেখে পরীক্ষা ও চিকিৎসা করা জরুরি।

     

    শতদলবাবু সতর্ক করে বলেন, ""এর পাশাপাশি নজর রাখতে হবে পুরভোটের প্রচার যেন আমাদের আবার করোনার ঝুঁকির দিকে ঠেলে না দেয়। কেন না, তৃতীয় ওয়েভ আমাদের দেশে তথা রাজ্যে এবং কলকাতায় হয়নি। এখনও সংক্রমণের হার কমই আছে। এটাকে বজায় রাখতে গেলে রাজনৈতিক নেতা থেকে সাধারণ মানুষ সবাইকে পুরনির্বাচনে সচেতনতা ও করোনা বিধি মেনে চলা অত্যন্ত জরুরি।”

     

    আরও পড়ুন:রাজ্যে ম্যালেরিয়ার নতুন স্ট্রেন! আতঙ্ক নয় সজাগ থাকুন

     

    বিধানসভা নির্বাচনের পর রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বাড়লেও পুজোর পর সেই সংখ্যাটা 700 থেকে 800- র মধ্যেই ঘোরাফেরা করেছে। তবে তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, এই পুরো সময় ধরেই কলকাতা সংক্রমণের শীর্ষে ছিল ও আছে। এই সংখ্যাটা 200-র থেকে খুব একটা বেশি নামেনি। তাই কলকাতায় সংক্রমণ নেই মনে করা ঠিক নয়। এই পরিস্থিতিতেই কলকাতা পুরসভার 144 টি ওয়ার্ডে পুর নির্বাচন হতে চলেছে।

     

    চিকিৎসক অরিন্দম বিশ্বাস বলেন, ""পুজোর পর করোনা যতটা বাড়বে বলে ধরণা করা হয়েছিল ততটা হয়নি। তার মানে এই নয়, কলকাতা পুরসভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে লাগামছাড়া মিটিং-মিছিল করতে হবে। এই বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলির সজাগ থেকে কম মিটিং-মিছিল করা উচিত বলে আমার মত। না হলে আবার সংক্রমণ বাড়বে, বাড়বে মৃত্যুহার।” তাঁর বক্তব্য, এখন কলকাতায় সংক্রমণের সংখ্যাটা 200 আছে, সেটা করোনা বিধি না মেনে রাজনৈতিক প্রচার চললে দৈনিক সংক্রমণ 600 তে পৌঁছতেই পারে। তাই রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ সবার সচেতন হওয়া অবশ্যই জরুরি।

     

    এরই পাশাপাশি, করোনার নতুন রূপ নিয়ে রাজ্যগুলিকে পাঠানো কেন্দ্রের ওই চিঠিতে লেখা হয়েছে, "করোনার এই নতুন রূপ বহু বার জিনের বিন্যাস বদল করেছে। এই পরিস্থিতিতে ভাইরাসের নতুন রূপ জনস্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ তৈরি করতে পারে।করোনা ভাইরাসের  "আরও  ভয়াল' এই প্রজাতিকে ভাইরোলজির পরিভাষায় B.1.1.529 নাম দেওয়া হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অন্তত 32 বার স্পাইক প্রোটিন বদলে করোনা ভাইরাসের এই রূপ তৈরি হয়েছে। এর উৎস দক্ষিণ আফ্রিকা।


    শিবপ্রিয় দাশগুপ্ত - এর অন্যান্য লেখা


    কলকাতার পুর-স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় বিপুল ঘাটতি, তুলনায় শাসক দলের প্রচার অনেক।

    ছিন্নমূল হয়ে ওপার থেকে এপার বাংলায় এসে বাজি বানিয়ে বুড়িমা কালীপুজোর মহালগ্নে বাঙালির শ্রেষ্ঠ ব্র্যান

    পুজোর সময় পুরসভার গাফিলতির ফলেই কলকাতায় ডেঙ্গু সংক্রমণের বিপদ বাড়ল?

    দেশবন্ধুর স্বপ্নের প্রাথমিক স্কুলের ভাবনাকে সার্থক করতে ব্যর্থ কলকাতা পুরসভা

    সরকারি ও সরকার পোষিত স্কুলে চতুর্থ শ্রেনির কর্মীর অভাবে সময়মতো সাফসুতরো করে স্কুল খোলা নিয়ে সংশয়।

    কলকাতায় সার্কাসের তাঁবু উধাও। একসময় শহরে শীতের বার্তা নিয়ে আসত এই সার্কাসের তাঁবু।

    মহামারীর আশঙ্কা সঙ্গী করেই মহানগরের পুরভোট-4thpillars

    Subscribe to our notification

    Click to Send Notification button to get the latest news, updates (No email required).

    Not Interested